অভিষেকে প্রথম দিনেই ৪টি শিকার করল মুস্তাফিজ

​প্রথম ম্যাচেই যাদু দেখলেন বাংলার টাইগার মুস্তাফিজ।  ইংলিশ কাউন্টি ক্রিকেটে বাংলাদেশের বাঁ-হাতি পেসার মুস্তাফিজুর রহমানের শুরুটা উইকেট দিয়ে নয়, হল ক্যাচ দিয়ে। ফিল্ডিং করতে নেমে ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারের টাইমাল মিলসের করা তৃতীয় বলে নিক ব্রাউনের ক্যাচ ধরেন তিনি। এরপর তিনি ১ম ওভারে রান দেন মাত্র ৪ এরপরে ২য় ওভারে মাত্র ২ রান দিয়ে ১ টি উইকেট তুলেন নেন, ৩য় ওভারে ৭ রান দিয়ে আবারও নেন আরও ২ উইকেট এরপর ৪র্থ তম ওভারে আবারও নেন ১ উইকেট। ৪ ওভারে রান দেন মাত্র ২৩ ।

শীর্ষ স্থানীয় ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসির মতে, ক্যাচটা ছিল দর্শনীয়। নিক ব্রাউন মাত্র এক রান করেই ফিরে যান সাজঘরে।

এর আগে, চেমসফোর্সে এসেক্সের বিপক্ষে টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে এদিন ৬ উইকেট হারিয়ে নির্ধারিত ২০ ওভারে ২০০ রান তুলে সাসেক্স। পরে এসেক্স ব্যাট করতে নেমে ২০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে সংগ্রহ করেন ১৭৬ রান। এতে করে ২৪ রানে জয় লাভ করে মুস্তাফিজের সাসেক্স।

Advertisements

কুরআন সম্পর্কে কতিপয় ভুল বিশ্বাস ও আচরণঃযেগুলো পালন করা শরীয়া ভিত্তি নয়।

কুরআন সম্পর্কে কতিপয় ভুল বিশ্বাস ও আচরণ:

১) অর্ধ শাবানের রাতে কুরআন অবতীর্ণ হয়েছে বলে বিশ্বাস করা। অথচ তা অবতীর্ণ হয়েছে রামাযান মাসের কদরের রাতে। (সূরা বাকারা: ১৮৫ ও সূরা কদর)

২) কবর জিয়ারত করতে গিয়ে কুরআন (সূরা ফাতিহা, নাস, ফালাক, ইখলাস ইত্যাদি সূরা) পাঠ করা। এটি দলীল বহির্ভূত কাজ হওয়ার কারণে বিদয়াত।

৩) মৃত শয্যায় শায়িত ব্যক্তির পাশে কুরআন পাঠ করা। এটি বিদআত। অথচ সুন্নত হচ্ছে, মৃত্যু পথযাত্রীকে ‘লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ’ র তালকীন দেয়া বা তাকে শুনিয়ে কালিমা পাঠ করা।

৪) কুরআন খতম (শবিনা খতম) করে তার সওয়াব মৃত ব্যক্তির উদ্দেশ্যে বখশীয়ে দেয়া। এটিও দলীল বহির্ভূত হওয়ার কারণে বিদআত।

৫) অসর্তকতা বশত: হাত থেকে কুরআন পড়ে গেলে তার ওজন বরাবর চাল সদকা করা। এটি শরীয়তের কোন বিধান নয়। বরং এজন্য জন্য আল্লাহর নিকট ইস্তিগফার করা প্রয়োজন।

৬) না বুঝে কুরআন তিলাওয়াত করলে সওয়াব হবে না বলে ধারণা করা। এ ধারণা ঠিক নয়। সঠিক কথা হচ্ছে, বুঝে হোক অথবা না বুঝে হোক কুরআন পাঠ করলে প্রতিটি অক্ষরে ১টি করে (যা ১০টি নেকীর সমান) সওয়াব অর্জিত হবে। তবে কুরআন বুঝার চেষ্টা করা ও কুরআন নিয়ে গবেষণা করা নি:সন্দেহে উত্তম কাজ।

৭) কুরআন তেলাওয়াতের শেষে ‘সাদাকাল্লাহুল আজীম’ (আল্লাহ সত্য বলেছেন) বলাকে সুন্নত মনে করা ঠিক নয়। কারণ, এর কোন শরয়ী ভিত্তি নাই। সুতরাং এটিকে নিয়ম করে পাঠ করা ঠিক নয়।

৮) কুরআন হাতে নিয়েই তাতে চুমু খাওয়া। এটিকে নিয়ম করে নেয়া ঠিক নয়। তবে হঠাৎ আবেগে চুমু খেলে তাতে সমস্যা নাই।

৯) এ বিশ্বাস করা যে, হাদীস মানার প্রয়োজন নাই। কেবল কুরআন মানাই যথেষ্ট। এটি মুসলিম উম্মাহকে পথভ্রষ্ট করার এক গভীর ষড়যন্ত্র। হাদীস ব্যতিরেকে কুরআন বুঝা আদৌ সম্ভব নয়।

১০) সিডি, ক্যাসেট, মোবাইল ইত্যাদিতে কুরআন তিলাওয়াত চালু করে গল্প-গুজবে ব্যস্ত থাকা বা তার প্রতি অমনোযোগিতা প্রকাশ করা। এটি কুরআনের প্রতি অবহেলার শামিল। আল্লাহ তায়ালা কুরআন তিলাওয়াত হলে চুপ থেকে মনোযোগ সহকারে শুনার নির্দেশ নিয়েছেন। (সূরা আরাফ: ২০৪)

১১) মোবাইলে রিংটোন হিসেবে কুরআন তিলাওয়াত রাখা উচিৎ নয়। কারণ, তা টয়লেট বা অপবিত্র স্থানে বেজে উঠতে পারে। তাছাড়া রিং বাজলে আল্লাহর কথাকে কেটে দিয়ে মানুষের সাথে কথা বলা শুরু হয়। আল্লাহর বাণীর সাথে এরূপ আচরণ শোভনীয় নয়। অনুরূপভাবে মোবাইলের ওয়াল পেপার হিসেবে কুরআনের আয়াত সম্বলিত ছবি সেট করা উচিৎ নয়। কারণ, নাপাক স্থানে তা প্রকাশিত হয়ে যাবার সম্ভাবনা রয়েছে। 

১২) কুরআনের আয়াতকে ঘরের শোভা বর্ধন, বরকত নাজিল বা জিন-ভুত, যাদু, অসুখ-বিসুখ বা কোন কিছুর ক্ষতির আশংকা থেকে বাঁচার উদ্দেশ্যে লটকায়ে রাখা নাজায়েজ। তবে শিক্ষা বা স্মরণ করার উদ্দেশ্য হলে তা জায়েজ আছে। 

১৩) কুরআনের আয়াত দ্বারা ক্যালিগ্রাফি (Calligraphy) বানানো উচিৎ নয়। কারণ, তা মানুষের ভুল পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তাছাড়া মানুষ তা ঘরের শোভা বর্দ্ধনের উদ্দেশ্যে ব্যবহার করে থাকে।

১৪) কুরআন আয়াত লিখে তাবিজ ব্যবহার করা জায়েজ নয়। যদিও এটি মতো বিরোধপূর্ণ বিষয়। তবে সঠিক হল তা জায়েজ নয়। কারণ, এ মর্মে রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম থেকে মৌখিক, কর্মগত বা সম্মতি জ্ঞাপক কোন অনুমোদন পাওয়া যায় না। অনুরূপভাবে তথাকথিত ‘কুরআনের নকশা’ দ্বারা তাবিজ ব্যবহার করা হারাম। অবশ্য, অসুখ-বিসুখ, জিনের আক্রমন, যাদু-টোনা ইত্যাদির প্রভাব কাটাতে কুরআনের আয়াত পড়ে ঝাড়-ফুঁক দেয়া শুধু শরীয়ত সম্মতই না বরং তা সবোর্ত্তম চিকিৎসা।

– গ্রন্থনায়: আব্দুল্লাহিল হাদী

লিসান্স, মদীনা ইসলামি বিশ্ববিদ্যালয়

দাঈ, জুবাইল দাওয়াহ এন্ড গাইডেন্স সেন্টার, সউদী আরব

মসজিত,দলীয় চাপে খুতবা বয়ানের স্থান নহে

​ইসলামিক ফাউন্ডেশন কর্তৃক গত শুক্রবারের জুমার নামাজের খুতবা নির্দিষ্ট করে দেয়ার তীব্র প্রতিবাদ করেছেন বিভিন্ন ইসলামী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। গতকাল পৃথক পৃথক বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, মসজিদ কুরআন ও সুন্নাহর বিষয়ে বয়ানের স্থান। কোন রাজনৈতিক দলের বা কোন সরকারী সংগঠনের গলাবাজি বা রাজনৈতিক বিষয়ে চাপ সৃষ্টি করে প্রচারের স্থান নয়। গত শুক্রবার বিভিন্ন মসজিদে নির্দিষ্ট খুতবা পাঠে খতিবগণকে বাধ্য করার বিষয়টি অনভিপ্রেত। খুতবায় চাপ সৃষ্টি গ্রহণযোগ্য হতে পারে না। খুতবা নিয়ন্ত্রণের অপচিন্তা বাদ না দিলে সামাজিক প্রতিরোধ গড়ে উঠতে পারে। সুতরাং সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ দমনে শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত সকল পাঠ্যসূচিতে ইসলামী শিক্ষা বাধ্যতামূলক করলে মগজ ধোলাই করে কোন ছাত্রকে সন্ত্রাসী বা জঙ্গি বানানো যাবে না। এটা সরকার তথা শিক্ষা এবং আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে উপলব্ধি করতে হবে।
ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ঢাকা মহানগর দক্ষিণ সভাপতি মাওলানা মুহাম্মদ ইমতিয়াজ আলম ও সেক্রেটারী মাওলানা এবিএম জাকারিয়া এক বিবৃতিতে বলেছেন, মসজিদে কোন সময়ই সন্ত্রাস বা সাম্প্রদায়িকতা শিক্ষা দেয়া হয় না। খতীবগণ অত্যন্ত বিনয়ীভাবে মানুষকে পারিবারিক, সামাজিক ও রাষ্ট্রীয় জীবনে শৃঙ্খলা, পরস্পর ভ্রাতৃত্ব বন্ধন সুদৃঢ়করণ ও ভারসাম্য সমাজ গঠনের লক্ষ্যে উদ্বুদ্ধ করে থাকেন। যার মাধ্যমে সমাজের নানাবিধ সমস্যা সমাধান হয়ে থাকে। ইসলামিক ফাউন্ডেশনের খুতবাহ নির্দিষ্টকরণ বিষয়টি খুতবাহ’র ভূমিকা বাঁধাগ্রস্ত করবে। কাজেই সরকার এধরণের নজরধারী করে মূলত ইসলামকেই হেয়প্রতিপন্ন করেছে। ফলে বিশ্বে ইসলাম চরমভাবে অবজ্ঞারপাত্রে পরিণত হবে। তারা আরও বলেন, ইসলামকে যারা হেয় করতে সন্ত্রাসকে ইসলামের সাথে তালগুল করে ফেলেছে তারা মূলত ইসলামের কল্যাণ চায় না। জাতীয় তাফসির পরিষদ বাংলাদেশ জাতীয় তাফসির পরিষদের চেয়ারম্যান মাওলানা আহমদ আবদুল কাইয়ূম, উপদেষ্টা মুফতী কেফায়েতুল্লাহ কাশফী, কেন্দ্রীয় নেতা মুফতী ওমর ফারুক যুক্তিবাদী, প্রিন্সিপাল মুফতি বাকী বিল্লাহ প্রমুখ এক বিবৃতিতে বলেছেন, জু’মার খুতবাহ নিয়ন্ত্রণের অর্থ হলো মসজিদ থেকে সকল সন্ত্রাসের জন্ম। এধরনের বিশ্বাস থাকলে ইসলাম ও মুসলমান থেকে খারিজ হয়ে মুরতাদ হয়ে যাবে। মসজিদ আল্লাহর ঘর। মসজিদে আসলে মানুষের মন নরম হয়ে আল্লাহর ভয় জাগ্রত হয়। ফলে মানুষ অন্যায় ছেড়ে ভাল মানুষে পরিণত হয়। খতীবগণও অন্যায় কাজ, গর্হিত কাজ থেকে সকলকে বেঁচে থাকার তাগিদ দেন। খতীবগণ সব সময় দেশ, স্বাধীনতা ও মানবকল্যাণে ব্রত হওয়ার গুরুত্ব দেন। নজরধারীর নামে মসজিদের খুতবাহ নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করলে কারো জন্যই কল্যাণ হবে না।
তারা বলেন, ইসলামী শিক্ষা সর্বত্র উপেক্ষিত হওয়ার কারণেই সন্ত্রাসবাদ সর্বত্র মাথাচাড়া দিয়ে উঠছে। সন্ত্রাস রুখতে হলে শিক্ষার সকল স্তরে নৈতিকতা শিক্ষা অপরিহার্য। কসরে হাদী খানকাহ শরীফ কসরে হাদী খানকার খলিফা, শাহসুফী সৈয়দ আব্দুল হান্নান আল হাদী এক বিবৃতিতে বলেছেন, সন্ত্রাসবাদ দমনে মসজিদের খুতবাহ নিয়ন্ত্রণের লক্ষ্যে ইসলামিক ফাউন্ডেশন থেকে যে খুতবাহ তৈরি করে দেয়া হয়েছে তাতে অনেক অসঙ্গতি পরিলক্ষিত হয়েছে। সাধারণত: খতীবগণ মুসলমানদের জীবন চলার পাথেয় হিসেবে ভাল কাজ করা, মন্দকাজ ছাড়া সর্বোপরি ইসলাম ও মুসলমানদের উন্নতি, অগ্রগতি ও শান্তি কামনা করে দোয়া করেন এবং দিক-নিদের্শনা দিয়ে থাকেন। কিন্তু ইফার খুতবায় অমুসলিমদের জন্যও দোয়া করা হয়েছে যা ইসলামী শরীয়তে সম্পূর্ণরূপে নিষিদ্ধ। কেননা আল্লাহর নবী হযরত নূহ (আ:) তার অমুসলিম সন্তানের জন্য দোয়া করলে এবং হযরত ইবরাহীম আঃ তাঁর পিতার জন্য দোয়া করলে আল্লাহ তা ওহীর মাধ্যমে নিষেধ করে দেন। কাজেই কোন অমুসলিমের কল্যাণের জন্য দোয়া করা যাবে না। ইফা নির্ধারিত খুতবায় তা করে ইসলামবিরোধী কাজ করেছেন। তিনি আরও বলেন, মসজিদে কোন প্রকার সন্ত্রাসবাদ শিক্ষা দেয়া হয় না। অতীতে কেউ দেয়নি, বর্তমানেও দেয়া হয় না এবং ভবিষ্যতেও সন্ত্রাসবাদ শিক্ষা দেয়া হবে না।
কাজেই খুতবাহ বা মাহফিল নিয়ন্ত্রের ব্যর্থ চেষ্টা থেকে সরকারকে ফিরে আসতে হবে। মুসল্লী কল্যাণ পরিষদ ক্ষমতা, জমি, খাল, বিল, স্কুল, কলেজ ও অফিস-আদালত সবকিছু দখলের পর এখন জুমার খুতবা ও বয়ান দখলের চেষ্টা চলছে। মসজিদগুলো এতদিন আল্লাহ ও রাসূলের নিয়ন্ত্রণে চলত। এখন কী সরকার ইবাদত-বন্দেগির ক্ষেত্রেও নিজেদের দখল ও নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠায় মেতেছেন? গতকাল এক বিবৃতিতে মুসল্লী কল্যাণ পরিষদের সভাপতি হাজী আবু তাহের এক বিবৃতিতে একথা বলেন। তিনি আরো বলেন, গত পরশু জুমার নামাজে সরকারিভাবে রাজনীতি ও দুনিয়াবি কথা বলতে দেশের ইমাম-খতিবদের বাধ্য করা হয়। মসজিদে নামাজে সব মুসলমান অংশ নিয়ে থাকেন। এখানে কোন দল ও সংগঠনকে প্রকাশ্যে নাম নিয়ে গলাবাজি করার কোন নিয়ম নেই। মসজিদ দলনিরপেক্ষ স্থান। কোন মসজিদ রাজনৈতিক বক্তব্য বা বিভেদ কোনভাবেই গ্রহণযোগ্য হতে পারে না।

source link:http://rtnews24.com/bangla/national/%e0%a6%ae%e0%a6%b8%e0%a6%9c%e0%a6%bf%e0%a6%a6-%e0%a6%a6%e0%a6%b2%e0%a7%80%e0%a7%9f-%e0%a6%9a%e0%a6%be%e0%a6%aa%e0%a7%87%e0%a6%b0-%e0%a6%96%e0%a7%81%e0%a6%a4%e0%a6%ac%e0%a6%be-%e0%a6%ac%e0%a7%9f/

নতুনদের Craigslist এ কাজ করার ধারণা ওকরণীয় সমূহ

আমরা অনেকেই অনেক দিন ধরে ক্রেগলিস্টে কাজ করছি অথবা অনেকেই নতুন করে শুরু করতে চাইছি । আমার জানা মতে বাংলায় তেমন কোন টিউটোরিয়াল নেই তাই আমি নতুন হিসেবে নতুনদের জন্য সামান্য কিছু তথ্য সকলের সামনে উপস্থাপন করলাম । আসুন জেনে নেই আমাদের কি কেন এবং কিভাবে কাজ করতে হবে :)

আমাদের কাজের জন্য যা যা প্রয়োজন হবেঃ-

১.একাধিক ওয়েব ব্রাউজার একসাথে একাধিক মেইল ওপেন রাখার জন্য । তবে সর্বনিম্ন ২ টি ব্রাউজার হলেও কাজ করা যাবে। আপনি ( Mozila FireFox, Google Chrome, SeaMonkey, CometBird, Flock) ব্যবহার করতে পারেন।
২. জিমেইল অ্যাকাউন্ট (ইউএসএ এর নাম ভিত্তিক) ।
৩. জিমেইল অ্যাকাউন্ট ফোন ভেরিফাই করার জন্য ইউএসএ এর ফোন নম্বর ।

w4m ও জব পোস্ট উভয় কাজের জন্য মেইল তৈরি হয়ে গেলে মেইলটিকে অবশ্যই মাদার মেইল এ ফরওয়ার্ড করে দিতে হবে ।

মনে রাখতে হবে জব পোস্ট করার ক্ষেত্রে প্রতিটি মেইল কাজ শুরু করার আগে আমরা যে সিটিতে কাজ করবো তার আইপি দিয়ে তৈরি করতে হবে এবং w4m এ পোস্ট করার ক্ষেত্রে আগে থেকে মেইল তৈরি করে রাখা যেতে পারে তবে জবের জন্য মেইল পুরুষের নাম দিয়ে তৈরি করা ভালো এবং w4m এর জন্য অবশ্যই মেয়েদের নামে করতে হবে।

প্রথম ধাপঃ

আমরা যে সিটিতে কাজ করবো সেই সিটির প্রক্সি আইপি সক্স থেকে চালু করে নিতে হবে এবং চালু হয়ে গেলে নিশ্চিত হবার জন্য ওয়েব ব্রাউজারে টাইপ করতে হবে What is my ip ?

এরপর মেইল তৈরির জন্য আমেরিকান পুরুষ/ মহিলা এর নাম বাছাই করে নিতে হবে ।

বাছাই করা নাম দিয়ে মেইল তৈরি করতে হবে সেক্ষেত্রে ফোন নম্বরের স্থানে ইউ এস এর ফোন নম্বর ব্যবহার করতে হবে ।

দ্বিতীয় ধাপঃ ( মাদার মেইল ফরওয়ার্ড)

আপনার তৈরি মেইলটিকে মাদার মেইলে ফরওয়ার্ড করে দিতে হবে । এর জন্য আপনাকে দুই ব্রাউজারে দুটি মেইল ওপেন করতে হবে । একটিতে আপানর সদ্য তৈরি করা মেইল এবং অন্যটিতে মাদার মেইল ।

তৃতীয় ধাপঃ (সক্স ওপেন এবং প্রক্সি চালুর নিয়ম)

এবার দেখা যাক কিভাবে আপনি ইউএসএ আইপি ব্যবহার করার জন্য সক্স চালু করবেন

১. প্রথমে আপনাকে আপনার সক্সের জিপ ফাইলটি আনজিপ করে নিতে হবে।
২. এবার আনজিপ হলে সেটিকে শর্টকাট করে ডেস্কটপে নিতে হবে কেননা এটি পোর্টেবল । এর জন্য সবুজ চিহ্নিত Socks escort আইকন এর উপর মাউস এর রাইট বাটন ক্লিক করে Send To > Desktop (create shortcut icon) এ ক্লিক করুন। ।
৩. এবার ডেস্কটপে সক্সের আইকনটিতে ক্লিক করতে হবে। লগইন আইডি পাসওয়ার্ড দিয়ে প্রবেশ করুন। প্রবেশের পর বিভিন্ন দেশের নাম থেকে United States এ ক্লিক করুন।

এবার নিচে ইউএসএ এর বিভন্ন State দেখতে পাবেন এবং সেই State কয়টা প্রক্সি আছে সেটি দেখতে পারবেন। এবার আপনি যে State এ পোস্টিং করতে চান সেই State এ ক্লিক করুন। এরপর আপনি ঐ State এর সকল সিটি এর আইপি দেখতে পাবেন, এবার আপনি যে আইপি তে কাজ করতে চান সেই আইপিতে রাইট বাটন ক্লিক করে চালু Obtain To > Default profile এ ক্লিক করতে হবে।

এবার আমরা সক্স এর নিচের দিকে দেখতে পাব একটি সবুজ লাইট অন হয়ে গেছে, তার মানে সক্সটি এখন কাজ করার জন্য প্রস্তুত।

যদি একটি ভালো মানের আইপিতে কাজ করতে চান তাহলে আপনাকে দেখতে হবে যে সেই আইপি এর পিং রেট 100ms থেকে 150ms এর মধ্যে আছে কিনা এবং ঐ একই আইপি এর Uptime 03:00:00 থেকে 10:00:00 আছে কিনা। এইসকল রেঞ্জ এর মধ্যে থাকা আইপি গুলোর স্পীড বেশি হয় এবং লাইভ হবার সম্ভাবনা বেশি থাকে।

চতুর্থ ধাপঃ (পোস্ট করা ও পোস্ট লাইভ নিশ্চিত হওয়া)

এতক্ষণ আমরা যা করেছি সেটি ক্রেগলিস্টে কাজ করার জন্য সেটআপ সমূহ দেখানো হয়েছে, এবার আমরা যা করবো সেটা হল প্রধান বিষয়। এখন এই ধাপে আমরা দেখব কিভাবে জব সেকশন এ পোস্ট করবেন এবং লাইভ হয়েছে তা বুঝবেন । তো চলুন শুরু করা যাকঃ
১ . ১ম,২য় ও ৩য় ধাপ ওকে করার পর আমাদের বায়ারের দেয়া পোস্ট লিস্ট এক্সেল ফাইলটি ওপেন করতে হবে

২. এখানে জব পোস্টের জন্য যে লিঙ্ক গুল দেয়া আছে সেখান থেকে যে সিটিতে পোস্ট করবেন সেটির জব সেকশন এর পোস্ট লিংক কপি করে ব্রাউজারে ওপেন করে নিন।
৩. এবার আমরা একটা ফর্ম ফেজ পাব যেখানে আমাদের পোস্ট এর টাইটেল , লোকেশন ,ইমেইল ( কাজের শুরুতে আমরা যে মেইল টি তৈরি করেছি সেটি) পোস্টের বর্ণনা , Compenstion এ কত পে করা হবে তা ও জব কি ধরনের হবে এসব ফিল্ড গুলো পূরণ করুন।

৪. এবার পেজের নিচে দিকে Continue এ ক্লিক করুন । এর পর পরবর্তী পেজ আসবে এবং এখানে ও Continue বাটন এ ক্লিক করুন।

৫. এখন একটি কনফার্মেশন লিঙ্ক আপনার নতুন মেইল এ যাবে। সেখান থেকে কনফার্মেশন লিংক এ ক্লিক করুন।
৬. এবার Terms & Condition এর পেজ আসবে। এবার নিচে Agree তে ক্লিক করুন।

পরবর্তী যে পেজ আসবে তার মাধ্যমে আমরা বুঝতে পারবো আমাদের পোস্ট লাইভ হয়েছে কি না ।
যদি ফোন নম্বর চায় তাহলে বুঝতে হবে লাইভ হয়নি ।

একই ভাবে আবার পুনরায় ওই জব লিঙ্ক ওপেন করে নতুন করে পোস্ট করুন ।এভাবে প্রতিটি মেইল ও প্রক্সি দিয়ে আপনি একটি সিটিতে ১৫ টি পর্যন্ত পোস্ট করতে পারেন।
যদি আপনার ৩ টি লাইভ হয় তাহলে এর পোস্ট করা যাবে না প্রতিটি পোস্টে ভিন্ন ধরনের জব পোস্ট করুন এবং প্রতিদিন একই সিটিতে পোস্ট না দেওয়াই ভালো ।

বোনাসঃ

এখানে ক্রেগলিস্টে ব্যবহারিত কিছু শব্দের সংজ্ঞা দেয়ার চেস্টা করবো এবং বেশ কিছু টিপস উল্লেখ করবো যার মাধ্যমে আপনি সহজেই পোস্ট লাইভ করতে পারবেন।

সক্সঃ

যে সফটওয়ার এর মাধ্যমে আপনি আপনার কম্পিউটার এর প্রক্সি পরিবর্তনের সাথে সাথে আইপি চেঞ্জ করতে পারেন।

লাইভঃ

লাইভ মানে হল আপনি যে পোস্ট করেছেন সেটি একটিভ অবস্থায় থাকা। পোস্টিং এর সময় যেসকল পোস্ট গুলো ক্রেগলিস্ট এপ্রুভ করে ফোন ভেরিফিকেশন ছাড়াই সেগুলোই হল লাইভ। এক্ষেত্রে আপনার যত বেশি লাইভ হবে আপনার লিড এর পরিমান তত বেশি হবে।

লিডঃ

আপনার লাইভকৃত পোস্ট এ যদি কেউ রিপ্লে দেয় তাহলে সেই রিপ্লে প্রথমে আপনার মাদার মেইল এ আসবে এবং সেখান থেকে তা ফরওয়ার্ড হয়ে আপনার কাউন্ট মেইল এ আসবে। তার মানে হচ্ছে যে প্রতিটি রিপ্লেই মানে হল এক একটি লিড, এ ধরনের ১০০০ টি রিপ্লেকে আমরা 1K বলে থাকি।

(flag) ফ্ল্যাগঃ

Flag মানে হল আপনার লাইভকৃত পোষ্টকে ডিলিট করে দেয়া। যখন ক্রেগলিস্ট এর মোডারেটর দেখে যে আপনার পোস্টিং এ স্প্যামিং হয়েছে বা পোস্টিং উপযুক্ত নয় তখন তারা সেই লাইভকে ডিলিট করে দেয়, আর এটাই হল ফ্ল্যাগ।

মাদার মেইলঃ

মাদার মেইল হল সেই ইমেল যে ইমেইল এ আপনার সকল প্রয়োজনীয় মেইল যেমন লিংক কনফার্মেশন, লিড, লাইভ এর মেইল গুলো আসবে সেটি।

কাউন্ট মেইলঃ

এই ইমেইল এ ফিল্টারিং এর মাধ্যমে শুধু মাত্র আপনার লিড গুলো আসবে। এবং আপনি এখান থেকেই বুঝতে পারবেন যে আপনার মোট কতটি লিড এসেছে।

কিছু প্রয়োজনীয় কথাঃ

১. ধৈর্য্য ধারন করে কাজ করতে থাকুন, যতক্ষণ পর্যন্ত লাইভ না হয় ততোক্ষণ ধৈর্য্য সহকারে পোস্ট করতে থাকুন। কারন ধৈর্য্য ছাড়া ক্রেগলিস্ট এ কাজ করে সফল হওয়া যায় না।

২. নিজে নিজে অ্যাড লিখে পোস্ট করার চেষ্টা করুন। এবং আকর্ষণীয় টাইটেল দিতে পোস্ট করুন। সেক্ষেত্রে লিড পাওয়ার সম্ভবনা খুবই বেশি থাকে।

৩. আপনার ইমেইল , লাইভ সহ সকল তথ্য নিয়মিত সংরক্ষণ করুন।

৪. প্রতিদিনের বায়ারের টার্গেট পূরণ করার চেষ্টা করুন।

৫. একই সিটিতে ৩ বার এর বেশি লাইভ করানো থেকে বিরত থাকুন।

৬. W4M এর লাইভ এর জন্য সবচেয়ে ভালো সময় বাংলাদেশের জন্য ভোর ০৫টা থেকে সকাল ১০ টা এবং সন্ধ্যা ০৫ টা থেকে রাত ১০টা। তাই চেষ্টা করুন এই সময়ের মধ্যে পোস্টিং করা ও লাইভ করানোর জন্য। তাহলে আপনি সবচেয়ে বেশি লিড পেতে পারেন। আর জব পোস্টিং এর জন্য সারা দিন রাতই লাইভ হয়।

৭. W4M এর লিড বেশি হয় এবং একসাথে অনেক লিড পাওয়া যায়,কিন্তু W4M এর ফ্ল্যাগ বেশি হয়। অন্যদিকে জব এ লিড ধীরে ধীরে আসতে থাকে কিন্তু ফ্ল্যাগ কম হয়।

৮. সক্স ব্যবহারে মিতব্যায়ি হোন । অযথা বার বার আইপি চেঞ্জ করবেন না। এতে করে আপনার জন্য বরাদ্দকৃত আইপি এর পরিমান কমে যেতে পারে, তাছাড়া ক্রেগলিস্ট বাদে ঐ আইপি দিয়ে অন্যকাজ করবেন না।

৯. সক্সে যদি কোন সমস্যা হয় তাহলে লগ আউট করে পুনরায় লগইন করুন। তাতেও যদি না হয় তাহলে পিসি রিস্টার্ট দিন।

১০ সক্স চালানর জন্য উইন্ডোজ সেভেন ব্যবহার করুন, আর যারা এক্সপি ব্যবহার করেন তারা .Net 3.0 ইন্সটল করে নিন। অন্যথায় সক্স কাজ করবে না।

যারা সম্পূর্ণ নতুন তাদের কাজ করার ক্ষেত্রে কিছুটা সমস্যা হতে পারে তবে সেক্ষেত্রে অন্যদের কাছ থেকে কিছুটা সাহায্য নিলে আশা করি কোন সমস্যা হবে না । আমাদের টিউটোরিয়ালটি মনোযোগ সহকারে পড়ার জন্যা ধন্যবাদ।

চোর কে ধরুন আপনার ফোনের সাহায্যে ।চোর ফোন নিতে গেলে সাথে সাথে ধরা পরবে

  • আসালামু আলাইকুম,

    কেমন আছেন সবাই?আশা করি আল্লাহর রহমতে সবাই ভালই আছেন।আমি ও ভালো আছি।ধরুন চোর আপনার বাসাই এসেছে চুরি করতে।বা আপনি গুমিয়ে রয়েছেন।এর মধ্যে আপনার ফোন যেই নিতে যাবে সাতে সাতে ফোন বেজে উঠবে।


    আজ আমি আপনাদের মাঝে যেই সফটওয়্যার টি শেয়ার করব সেটা হল এমন একটা সফটওয়্যার যেই সফটওয়্যার টি Active করে রেখে দিলে ফোনে কেও হাত দিলে বেজে উঠবে।
    সফটওয়্যার টি প্রথমে ডাউনলোড করুন
    সফটওয়্যার টি ডাউনলোড করুন এই সাইট থখে
    ডাউনলোড করে ইন্সটল করুন।তারপর একটা স্কীন আসবে সেখানে Active বাটনে ক্লিক করে ফোনেটি রেখে দিন।এবং ফোন টি ধরুন এবার দেখুন যে ফোনটি বেজে উঠেছে।গুমানোর আগে Active করে রাখুন।

    দেখা হবে আগামী পোস্ট এ ভালো থাকুন।

    আর আমার জন্য দোয়া করুন আমি যেন আরও ভালো পোস্ট আপনাদেরকে উপহার দিতে পারি।

Craigslist নতুন ও কাজে ইচ্ছুকদের জন্য Important কিছু টিপস

TechTricks

  •  

  •  

  •  

  •  

Navigation

Craigslist নতুন ও কাজে ইচ্ছুকদের জন্য Important কিছু টিপস

আজ যে বিষয়টি আপনাদের সামনে তুলে ধরছি তা হল  Craigslist। আমরা অনেকেই অনেক দিন ধরে ক্রেগলিস্টে কাজ করছি অথবা অনেকেই নতুন করে শুরু করতে চাইছি । Craigslist এর কাজ করতে কি কি লাগে তা তুলে দরলাম ।

ক্রেগলিস্ট কি:

ক্রেগলিস্ট হল একটি অনলাইন বিজ্ঞাপন প্রচার নেটওয়ার্ক যা বিশ্বব্যাপী মুক্ত অনলাইন বিজ্ঞাপন প্রচার মাধ্যম হিসাবে কাজ করছে যেখানে রয়েছে একাধিক বিভাগ যেমন, জব, সেল, সার্ভিস, হাউজিং মোট কথায় বাসা ভাড়া থেকে শুরু করে আপনি আপনার অবসর বিনোদনের জন্য একজনকে খুজে নিতে পারেন ।

আমদের কাজের জন্য যা যা দরকার 

১.একাধিক ওয়েব ব্রাউজার একসাথে একাধিক মেইল ওপেন রাখার জন্য । তবে সর্বনিম্ন ২ টি ব্রাউজার হলেও কাজ করা যাবে। আপনি Google Chrome,Super Bird, Mozilla FireFox) ব্যবহার করতে পারেন।
২. জিমেইল অ্যাকাউন্ট (ইউএসএ এর নাম ভিত্তিক) ।
w4m ও জব পোস্ট উভয় কাজের জন্য মেইল তৈরি হয়ে গেলে মেইলটিকে অবশ্যই মাদার মেইল এ ফরওয়ার্ড করে দিতে হবে ।
মনে রাখতে হবে জব পোস্ট করার ক্ষেত্রে প্রতিটি মেইল কাজ শুরু করার আগে আমরা যে সিটিতে কাজ করবো তার আইপি দিয়ে তৈরি করতে হবে এবং w4m এ পোস্ট করার ক্ষেত্রে আগে থেকে মেইল তৈরি করে রাখা যেতে পারে তবে জবের জন্য মেইল পুরুষের নাম দিয়ে তৈরি করা ভালো এবং w4m এর জন্য অবশ্যই মেয়েদের নামে করতে হবে।
প্রথমে আপনার  কম্পিউটার এ একাদিক ব্রাউজার থাকতে হবে । আইপি   change করার জন্য একটি   software লাগবে । তারপর  USA এর আইপি এবং ফোন নাম্বার লাগবে ।
আপনি আপনার Computer এর আইপি পরিবরতন করার জন্য  socks নামক একটি  Software  Google থেকে Dowmload  করে নিতে পারবেন । Download করার পর জিপ ফাইলটিকে আনজিপ করে     করে নিতে হবে । তারপর আপনার ক্রয়কৃত আইপির আইডি এবং পাসওয়ারড দিয়া লগিন করতে হবে ।
লগিন করার পর World অনেক  Country নামসমূহ আসবে । তারপর আপনি  USA এর উপর ক্লিক করুন । এবার আপনার সামনে  USA  এর বিভিন্ন State এর আইপি  আসবে । তারপর আপনি যে   State তে কাজ করতে চান তার উপর ক্লিক করুন । তারপর ঐ  State এর আইপি গুলো দেক্তেঁ পারবেন ।
এবার আপনি ভাল মানের আইপি সিলেক্ট করে তার অপর Right বাটনে ক্লিক করে   Obtair to> Dafault এ ক্লিক করতে হবে । এবার  আমরা   এর নিচের দিকে সবুজ আলো দেকতে পারব ।এখন বুজতে পারব কাজ করার জন্য উপজুগি হইছে। আর আইপি check করার জন্য আপনি   গিয়ে লিখুন   what is my ip?  আর তখন আপনার আইপি দেকতে পারবেন। আর আইপির Uptime 03:00:00 থেকে 10;00:00 কিনা দেকে নিতে হবে। কারণ এগুলো ভাল মানের আইপি।

সক্স ওপেন এবং প্রক্সি চালুর নিয়ম

এবার দেখা যাক কিভাবে আপনি ইউএসএ আইপি ব্যবহার করার জন্য সক্স চালু করবেন
১. প্রথমে আপনাকে আপনার সক্সের জিপ ফাইলটি আনজিপ করে নিতে হবে।
২. এবার আনজিপ হলে সেটিকে শর্টকাট করে ডেস্কটপে নিতে হবে কেননা এটি পোর্টেবল । এর জন্য সবুজ চিহ্নিত Socks escort আইকন এর উপর মাউস এর রাইট বাটন ক্লিক করে Send To > Desktop (create shortcut icon) এ ক্লিক করুন। ।
৩. এবার ডেস্কটপে সক্সের আইকনটিতে ক্লিক করতে হবে। লগইন আইডি পাসওয়ার্ড দিয়ে প্রবেশ করুন। প্রবেশের পর বিভিন্ন দেশের নাম থেকে United States এ ক্লিক করুন।
এবার নিচে ইউএসএ এর বিভন্ন State দেখতে পাবেন এবং সেই State কয়টা প্রক্সি আছে সেটি দেখতে পারবেন। এবার আপনি যে State এ পোস্টিং করতে চান সেই State এ ক্লিক করুন। এরপর আপনি ঐ State এর সকল সিটি এর আইপি দেখতে পাবেন, এবার আপনি যে আইপি তে কাজ করতে চান সেই আইপিতে রাইট বাটন ক্লিক করে চালু Obtain To > Default profile এ ক্লিক করতে হবে।
এবার আমরা সক্স এর নিচের দিকে দেখতে পাব একটি সবুজ লাইট অন হয়ে গেছে, তার মানে সক্সটি এখন কাজ করার জন্য প্রস্তুত।
যদি একটি ভালো মানের আইপিতে কাজ করতে চান তাহলে আপনাকে দেখতে হবে যে সেই আইপি এর পিং রেট 100ms থেকে 150ms এর মধ্যে আছে কিনা এবং ঐ একই আইপি এর Uptime 03:00:00 থেকে 10:00:00 আছে কিনা। এইসকল রেঞ্জ এর মধ্যে থাকা আইপি গুলোর স্পীড বেশি হয় এবং লাইভ হবার সম্ভাবনা বেশি থাকে।

পোস্ট লাইভ করা বা লাইভ হল কিনা তাবোজার উপাই

এখন আমরা দেখব কিভাবে পোস্ট দিতে হবে এবং পোস্ট লাইভ হল কিনা। আপনি আপনার বায়ারের কাছ হতে পোস্ট দিবার জন্য যে লিঙ্ক গুলো পেয়েছেন তা একটি এক্সেল সীট এ রাখুন। তারপর আপনি যে সেকশনে কাজ করতে চান সেই সেকশন সিলেক্ট করলে একটি ফর্ম আসবে। ঐ ফর্ম এ আপনার পোস্ট এর Title ,লোকেশন, ইমেইল, পোস্ট এর বরননা দিয়ে এভাবে পুরন করতে হবে।
তারপর নিচের দিকে   Continue বাটনে ক্লিক  করুন। তারপর আপনার মেইল এ   Confermation মেইল আসবে তারপর  confirmation link এ ক্লিক করে তারপর এগ্রি বাটন এ ক্লিক করুন। তারপর একটি পেজ আসবে সেখানে আপ্নে দেকতে পারবেন আপনার পোস্ট টি লাইভ হয়েছে কিনা। লাইভ হলে মোবাইল নাম্বার চাবেনা। আর পোস্ট লাইভ না হলে মোবাইল নাম্বার চাবে।
আর যে সব  state তে জনগন কম সেয় সব  City তে মূলট পোস্ট লাইভ হয়। আর ভাল কোন  City তে পোস্ট লাইভ করতে আপনাকে Phone নাম্বার  Use করতে হবে। তবে নাম্বার যত কম   Useকরতে পারবেন তত বেসি লাভ হবে। আর আপনাকে  Must be দরজ সহকারে পোস্ট দিতে হবে যে পর্যন্ত পোস্ট লাইভ না হয়। আপনাকে Craiglist এর কাজ পাওয়ার জন্য বিভিন্ন  Freelancingমার্কেট এ কাজ পাওয়ার জন্য বিট করতে পারেন।
এছাড়া আমাদের দেশে অনেক বর ভাই আছে  তাদের কাজ থেকেও কাজ নিয়ে করতে পারেন যদি আপনি কাজ পারেন। এছাড়া আপনি তাদের কাজ থেকে কাজ সেকার পর ও করতে পারেন। আশা করি আপ্নারা এভাবে কাজ করতে পারবেন।

পোস্ট ফ্ল্যাগ না হওয়ার ৫ গুরুত্বপূর্ণ টিপস

ক্রেগলিস্ট এ পোস্ট করার সময় যে সমস্যা সবচেয়ে বেশি হয় সেটি হল দ্রুত ফ্ল্যাগ হয়ে যাওয়া। এর কারনে কাঙ্ক্ষিত লিড থেকে আমরা বঞ্চিত হয়ে থাকি, তাই আপনি যত বেশি সময় ধরে আপনার পোস্ট লাইভ রাখতে পারবেন ততোবেশি লিড আসবে,কেননা অনলাইন মার্কেট প্লেস এ অনেক বায়ার ২৪ ঘণ্টা লাইভ না রাখতে পারলে পেমেন্ট দেয় না তবে অনেক সেকশন আছে যেখানে ২৪ ঘণ্টা লাইভ রাখা অনেক কষ্টের হয়ে দাড়ায়।
আসুন দেখি নেই কিভাবে আপনি এই ফ্ল্যাগ থেকে মুক্তি পাবেন।

১. বিরত থাকুন কপি পেস্ট এড থেকে।

কপি পেস্ট এড ক্রেগলিস্টের এড ফ্ল্যাগ হবার সবচেয়ে বড় কারন। আপনি যদি অন্য কারো এড কপি করে নতুন এড পোষ্ট করে তাহলে আপনার ফ্ল্যাগ হবার সম্ভবনা ৯০% । কারন ক্রেগলিস্টের পলিসিতে দেয়া আছে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে যদি একই সিটিতে একই পোষ্ট করা হয় তাহলে তা অটোমেটিক ভাবেই ফ্ল্যাগ হয়ে যাবে। সুতরাং নিজে নিজে এড লেখার চেষ্টা করুন এবং প্রয়োজনে অন্যের এড ব্যবহার করার ক্ষেত্রে তা যথেষ্ট পরিমানে এডিট করে নিয়ে তার পর আবার পোষ্ট করুন।
আর সব চেয়ে ভালো হয় যদি আপনি ইমেজ সহকারে এড পোষ্ট করেন। এতে করে আপনার একই লেখা বার বার পোষ্ট করার কোন ঝামেলা হবে না। মাঝে মাঝে শুধুমাত্র ইমেজ ফাইলের নাম পরিবর্তন করে নতুন কোন হোস্টিং সার্ভারে আপলোড করলেই আপনি ইউনিক লিংক পাবেন। যা দিয়ে আপনি সহজেই পোষ্ট অনেকক্ষণ লাইভ রাখতে পারেন।

২.ব্যবহার করুন সঠিক IP:

ফ্ল্যাগ হবার আর একটি অন্যতম কারন হচ্ছে সঠিক আইপি নির্বাচন না করা। আপনি যদি নিউ ইয়র্ক এর লং আইসল্যান্ড এ পোষ্ট করেন কিন্তু আপনি নেন ক্যালিফোর্নিয়ার অন্য একটি সিটির তাহলে আপনার পোষ্ট হবে ঠিকই কিন্তু লাইভ হবে না। অটোমেটিক ভাবে তা ফ্ল্যাগ হয়ে যাবে। তাই যে সিটিতে পোষ্ট করবেন ঠিক সেই সিটিতেই আইপি নিবেন।

৩. পিভিয়ে বা ফোন নম্বরের ব্যাবহারঃ

অনেকই খুব কম দামে পিভিয়ে বা ফোন ভেরিফাই অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করছেন তবে সে ক্ষেত্রে সফলতার হার অনেক কম কেননা তারা জানেন না যে তাদের ফোন নম্বর কোন সিটির তাই এক সিটির পিভিয়ে দিয়ে অন্য সিটিতে পোস্ট করছে এতে খুব দ্রুতই ফ্ল্যাগ হয়ে যায় । পোস্ট লাইভ রাখতে হলে আপনাকে অবশ্যই যে সিটির আইপি নিয়ে কাজ করছেন সেই সিটিতে সেই সিটির ফোন নম্বর ব্যবহার করতে হবে অন্যথায় খুব দ্রুত ফ্ল্যাগ হয়ে যাবে।

৪. দ্রুত পোষ্ট করা থেকে বিরত থাকুন।

আমাদের মধ্যে অনেকেই আছেন যারা সময় বাঁচানোর জন্য একসাথে অনেক গুলো পোষ্ট করে। যা মোটেও ঠিক নয়। এতে করে একসাথে সব পোষ্ট ই ফ্ল্যাগ হয়ে যায়। তাই একটি পোষ্ট করার ২-৩ মিনিট পর অন্য পোষ্ট করতে হবে, তা না হলে ক্রেগলিস্ট এর বট আপনাকে স্প্যামার হিসাবে ধরে ফেলবে এবং অটোমেটিক ফ্ল্যাগ করে দিবে।

৫. টাইটলে রাখুন সহজ ও সুন্দর।

অনেকের অভ্যাস আছে যে টাইটেল এ বিভিন্ন সাঙ্কেতিক অক্ষর যেমন !@#$%$&*>:< এসব ব্যবহার করেন। আপনি যদি এসব আপনার পোষ্ট বা টাইটলে এর মধ্যে ব্যবহার করেন তাহলে খুব তাড়াতাড়ি ই ফ্ল্যাগ হয়ে যাবে। কারন এসব অক্ষর দেখা মাত্রই এডমিন সেই পোষ্ট কে দ্রুত ফ্ল্যাগ করে দেয়।
তাই আপনি যদি চান আপনার পোষ্টকে অনেকক্ষণ ধরে লাইভ রাখতে এবং বেশি করে রিপ্লে পেতে তাহলে উপরের রুলস এবং টিপস গুলো মেনে চললেই হবে।

কিছু প্রয়োজনীয় কথাঃ

১. ধৈর্য্য ধারন করে কাজ করতে থাকুন, যতক্ষণ পর্যন্ত লাইভ না হয় ততোক্ষণ ধৈর্য্য সহকারে পোস্ট করতে থাকুন। কারন ধৈর্য্য ছাড়া ক্রেগলিস্ট এ কাজ করে সফল হওয়া যায় না।
২. নিজে নিজে অ্যাড লিখে পোস্ট করার চেষ্টা করুন। এবং আকর্ষণীয় টাইটেল দিতে পোস্ট করুন। সেক্ষেত্রে লিড পাওয়ার সম্ভবনা খুবই বেশি থাকে।
৩. আপনার ইমেইল , লাইভ সহ সকল তথ্য নিয়মিত সংরক্ষণ করুন।
৪. প্রতিদিনের বায়ারের টার্গেট পূরণ করার চেষ্টা করুন।
৫. একই সিটিতে ৩ বার এর বেশি লাইভ করানো থেকে বিরত থাকুন।
৬. W4M এর লাইভ এর জন্য সবচেয়ে ভালো সময় বাংলাদেশের জন্য ভোর ০৫টা থেকে সকাল ১০ টা এবং সন্ধ্যা ০৫ টা থেকে রাত ১০টা। তাই চেষ্টা করুন এই সময়ের মধ্যে পোস্টিং করা ও লাইভ করানোর জন্য। তাহলে আপনি সবচেয়ে বেশি লিড পেতে পারেন। আর জব পোস্টিং এর জন্য সারা দিন রাতই লাইভ হয়।
৭. W4M এর লিড বেশি হয় এবং একসাথে অনেক লিড পাওয়া যায়,কিন্তু W4M এর ফ্ল্যাগ বেশি হয়। অন্যদিকে জব এ লিড ধীরে ধীরে আসতে থাকে কিন্তু ফ্ল্যাগ কম হয়।
৮. সক্স ব্যবহারে মিতব্যায়ি হোন । অযথা বার বার আইপি চেঞ্জ করবেন না। এতে করে আপনার জন্য বরাদ্দকৃত আইপি এর পরিমান কমে যেতে পারে, তাছাড়া ক্রেগলিস্ট বাদে ঐ আইপি দিয়ে অন্যকাজ করবেন না।
৯. সক্সে যদি কোন সমস্যা হয় তাহলে লগ আউট করে পুনরায় লগইন করুন। তাতেও যদি না হয় তাহলে পিসি রিস্টার্ট দিন।
১০ সক্স চালানর জন্য উইন্ডোজ সেভেন ব্যবহার করুন, আর যারা এক্সপি ব্যবহার করেন তারা .Net 3.0 ইন্সটল করে নিন। অন্যথায় সক্স কাজ করবে না।

সক্সঃ

যে সফটওয়ার এর মাধ্যমে আপনি আপনার কম্পিউটার এর প্রক্সি পরিবর্তনের সাথে সাথে আইপি চেঞ্জ করতে পারেন।

লাইভঃ

লাইভ মানে হল আপনি যে পোস্ট করেছেন সেটি একটিভ অবস্থায় থাকা। পোস্টিং এর সময় যেসকল পোস্ট গুলো ক্রেগলিস্ট এপ্রুভ করে ফোন ভেরিফিকেশন ছাড়াই সেগুলোই হল লাইভ। এক্ষেত্রে আপনার যত বেশি লাইভ হবে আপনার লিড এর পরিমান তত বেশি হবে।

লিডঃ

আপনার লাইভকৃত পোস্ট এ যদি কেউ রিপ্লে দেয় তাহলে সেই রিপ্লে প্রথমে আপনার মাদার মেইল এ আসবে এবং সেখান থেকে তা ফরওয়ার্ড হয়ে আপনার কাউন্ট মেইল এ আসবে। তার মানে হচ্ছে যে প্রতিটি রিপ্লেই মানে হল এক একটি লিড, এ ধরনের ১০০০ টি রিপ্লেকে আমরা 1K বলে থাকি।

ফ্ল্যাগঃ

Flag মানে হল আপনার লাইভকৃত পোষ্টকে ডিলিট করে দেয়া। যখন ক্রেগলিস্ট এর মোডারেটর দেখে যে আপনার পোস্টিং এ স্প্যামিং হয়েছে বা পোস্টিং উপযুক্ত নয় তখন তারা সেই লাইভকে ডিলিট করে দেয়, আর এটাই হল ফ্ল্যাগ।

মাদার মেইলঃ

মাদার মেইল হল সেই ইমেল যে ইমেইল এ আপনার সকল প্রয়োজনীয় মেইল যেমন লিংক কনফার্মেশন, লিড, লাইভ এর মেইল গুলো আসবে সেটি।

কাউন্ট মেইলঃ

এই ইমেইল এ ফিল্টারিং এর মাধ্যমে শুধু মাত্র আপনার লিড গুলো আসবে। এবং আপনি এখান থেকেই বুঝতে পারবেন যে আপনার মোট কতটি লিড এসেছে।
যারা সম্পূর্ণ নতুন তাদের কাজ করার ক্ষেত্রে কিছুটা সমস্যা হতে পারে তবে সেক্ষেত্রে অন্যদের কাছ থেকে কিছুটা সাহায্য নিলে আশা করি কোন সমস্যা হবে না । আমার টিউটোরিয়ালটি মনোযোগ সহকারে পড়ার জন্যা ধন্যবাদ।

অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ এর কার্যালয়, ভোলা এ চাকুরির বিজ্ঞপ্তি

​পদের নাম- সাটলিপিকার, অফিস সহকারী, জারিকারক, অফিস সহায়ক

অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ এর কার্যালয়, ভোলা এ নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি

অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ এর কার্যালয়, ভোলা এ বিজ্ঞপ্তি

অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ এর কার্যালয়, ভোলা

সহকারী চাকুরি

আবেদনের শেষ তারিখ ০৮-০৮-১৬